প্রথম….. .

প্রথম…..

-সাম্যময় সেন গুপ্ত –
প্রথম চুম্বনে খানিকটা 

বিষ থাকে 

এক অধর থেকে  আর এক অধরে 

যায়, হৃদয় পোড়ায় …………,
সেই পোড়া দাগ, 

সেই হালকা জ্বালা জ্বালা ভাব,

তাও একদিন জুড়ায় —,
তোমার ছাইতে যখন গঙ্গাজল পরে, 

অল্প কিছুটা বাষ্প উঠে  আকাশে মিলায়,

কানা মন শুধু 

আঁধপোড়া নাভির দিকে চেয়ে বলে – 

ভালো তো বেসেছিলাম, বাসিনি বল ? 

পার্থিব গলা শুধু  টেনে টেনে বলে —

“বলো হরি, হরি বোল !”
————-

Advertisements

প্রেম ছত্রাক  ( 9 )

প্রেম ছত্রাক  ( 9 )

 -সাম্যময় সেন গুপ্ত-

জ্যোৎস্নায় স্নানরত হাসনুহানা 

                     আস্তে কথা বল 

মহুয়ায় মাতাল হাওয়া —

               আর সাঁওতালি মাদল

থিরি  থিরি কাঁপে আঁধার

                  ঝিঁঝিঁর তালে তালে

এদিক ওদিক খুজছি তোকে 

                   পথ হারাবো বলে !

—————

স্বপ্ন নিয়ে দু চার কথা

স্বপ্ন নিয়ে দু চার কথা 

 – সাম্যময় সেন গুপ্ত –

বন্ধু কি এখনো স্বপ্নের  মালিক  ?

রেখে দিয়েছো যত্ন করে  —

দামি শাল, অ্যালবাম আর বেনারসীর পাশে  ?

হয়ত কোন শীতের দুপুরে 

স্বপ্নগুলো  নিয়ে বসবে,

ধুলো ঝেড়ে আবার রেখে দেবে 

নিশ্চিন্ত গহ্বরে 

তার চেয়ে একদিন ছাদে উঠে 

উড়িয়ে দাও তোমার স্বপ্নগুলো 

শিমুল তুলোর মতো ভাসতে ভাসতে 

তারা পৌছোক কোনো 

পঞ্চম শ্রেণীর পড়ার টেবিলে 

অথবা আটকে থাক কোনো 

প্রথম পরা শাড়ির 

অস্বাচ্ছন্দের ভাল লাগার ভাঁজে  !

—————–

​প্রেম ছত্রাক ( 47 )

​প্রেম ছত্রাক ( 47 )

       – সাম্যময় সেন গুপ্ত –

একলা একলা ঘুমাও সখি 
একলা জেগে ওঠো,

মন ফুটলেই বসন্ত 

তাই ফুলের মতো ফোঁটো

#
স্নিগ্ধ কোনো স্বপ্ন দেখে 

একলা মুচকি হেসো,

রঙ্গের খেলায় মেতে সখি 

আমায় ভালোবেসো 

…………

এক ফোঁটা 

এক ফোঁটা 

   – সাম্যময় সেন গুপ্ত –

এক ফোঁটা প্রেম 
নাটক নভেল নিংড়ে নিয়ে 
মেঘলা দুপুর, টাপুর টুপুর 
তোমায় নিয়ে,
এক ফোঁটা রাত 
সঙ্গে নিয়ে অনেক দুরে –
ছুটবো দুজন 
থামবো কোনো 
মিষ্টি ভোরে 
এক ফোঁটা মন আরেক ফোঁটায়
মিশলো যখন 
রূপসা নদীর কুল ছাপিয়ে 
ভীষন প্লাবন 
ফোঁটায় ফোঁটায় জমতে থাকে 
নানান কথা –
চাঁদনি রাতে হারিয়ে যাবার 
আকুলতা 
তেমন কোনো রাতে এসো 
বিপথ দিয়ে,
এক ফোঁটা প্রেম মাখবো গায়ে 
তোমায় নিয়ে !
…………

বিজ্ঞাপন ;  জীবন 

বিজ্ঞাপন ;  জীবন 

    -সাম্যময় সেন গুপ্ত-

বলেছিল ” জিগ্গেস না করলে 
ঝিংগালালা হবে কি করে !”
বলেছিল “প্রেমিকা আসবে,
স্যান্ডো গেঞ্জির হাত ধরে”

বুঝিয়েছিল “বিশেষ ফর্মুলার প্রয়োজন 
তবেই হাসবে কমোড, হাসবে কাপড় 
মলমে ফর্শা, কালো মেয়ে 
পাবে মনের মত বর

জানিয়েছিল “সততা মানে সাবান 
আর আত্মবিশ্বাস থাকে জুতোয়
বৌ-এর মুখে হাসি ফোটাতে 
একটি বিশেষ ট্যাবলেট খেতে হয়”

ছেলেটি জিগ্গেস করেছিল
কিণ্তু জীবন ঝিংগালালা হয়নি 
দড়ির ফাঁস খুলে লাস নামানো হলেও 
কোনো নোট পাওয়া যায় নি

সে taller sharper stronger হয়েও 
পিছিয়ে পরেছিল 
পিছিয়ে পরতে,  পরতে, পরতে, পরতে
সে ভিড়ের অতলে তলিয়ে ছিল
…………..

প্রেম ছত্রাক ( 16 )

প্রেম ছত্রাক ( 16 )

   – সাম্যময় সেন গুপ্ত –

কি চাও আমার কাছে ?
মুঠো মুঠো জোনাকি ?
নাকি এক রাশ শিউলি ?
অথবা …….
খানিকটা আগুন, রঙ্গীন মোড়কে  ?

কিছু চেও প্রিয়তমা 
তুষার পাতের আগে,
আমারো যে ধন্য হতে 
ভাল লাগে, বড় ভাল লাগে !
………….

আমি পালিয়ে বেড়াই

আমি পালিয়ে বেড়াই 
       – সাম্যময় সেন গুপ্ত –

আমি পালিয়ে বেড়াই ভাবনাগুলোকে 
প্রশ্রয় না দিয়ে 
আমি পালিয়ে বেড়াই ভাবনাগুলোকে 
আমার সাথে নিয়ে

মাথা ঝাঁকিয়ে ঝাঁকিয়ে ফেলতে যে চাই 
দুরন্ত চিন্তাগুলো 
মাথা জুড়ে ভিড় করেছে তোমার 
টুকরো স্মৃতিগুলো 
আমি পালিয়ে বেড়াই, পালিয়ে এড়াই 
বাঁচার  ইচ্ছেটাকে 
আমার ইচ্ছেগুলো জড়িয়ে আছে 
তোমার দেহটাকে 
আমি হাটতে হাটতে, হাটতে হাটতে
ক্লান্ত হতে চাই 
ক্লান্ত হয়ে, ভাবনা পেরিয়ে 
ঘুমের দেশে যাই 
সপ্নে দেখি ভোর এসেছে 
আলতো আলতা পায়ে 
তোমার মতই হাসছে সে ভোর 
কুয়াশা শাড়ি গায়ে 
আমি পালিয়ে বেড়াই, পালিয়ে হারাই 
আমার বেঁচে থাকার কারন 
দেখি সামনে তুমি দাড়িয়ে আছো 
তোমার কাছে যাওয়া বারণ 
আমি তোমার বাড়ি যেতে গিয়ে 
আমার বাড়ি যাই 
আমি আমার বাড়ি খুঁজতে গিয়ে 
ঠিকানা হারাই 
আমি ভোরের সাথে ঝগড়া করে 
রাতের কাছে যাই 
আবার মধ্য রাতে একলা আমি 
ভোরের সঙ্গ চাই

আমি পালাতে পালাতে হারাতে হারাতে 
ক্লান্ত হয়ে গেছি 
তোমার দরজা খুলে দেখো, আমি 
আর একবার এসেছি 

………….