পুড়ছে  টাকা 

পুড়ছে  টাকা 

          -সাম্যময় সেন গুপ্ত-

টাকা পোড়াচ্ছ তুমি 

চলো আমিও পোড়াই কিছু 

আনন্দ হবে, মজাও হবে 

অহংকার ও আসবে পিছু পিছু


সশব্দে  পুড়ছে টাকা 

আলোয় ভরেছে চারিদিক 

উষ্ণ তাপে শীতল হৃদয় 

নতুন শক্তি নিক


যারা মরছে না খেয়ে 

যারা ভাসছে বাণের জলে 

শুভ দীপাবলি তাদেরও বলি 

মুখোশেরই অন্তরালে !

————

Advertisements

​কথা দিলাম

কথা দিলাম 

      -সাম্যময় সেন গুপ্ত-

কথা দিলাম পলাশ রাঙ্গা বন 

                রোজ রাতে করবো জ্বালাতন

কথা দিলাম রোদ মাখা পথ প্রান্তর 

                লিখব চিঠি দুদিন অন্তর

কথা দিলাম ফ্রক্ পরা ছোট্ট মিষ্টি মেয়ে 

                 ঔরস আশায়, থাকবো পথ চেয়ে !

কথা দিলাম অনেক চেনা, 

সব হারিয়ে যাওয়া মুখ 

               নরম স্মৃতিতে, রাখব গভীর দুখ্

রাখবো  তোমায় আমার পাশে 

আমার সাথে সাথে

 কথা দিলাম রাখবো ধরে 

                   বান ভাসির রাতে  !

—————–

রাতের তিন অধ্যায় 

রাতের তিন অধ্যায় 

       -সাম্যময় সেন গুপ্ত-

কিছু স্তর কুয়াশায় 

কিছু হারিয়েছে অজানায়

ভালো মন্দ ভেদাভেদ 

রোধ বৃষ্টির চিলতে আবেগ 

সব নিয়ে গুটি পোকা অপেক্ষায় 

রাতের তিন অধ্যায়  !

————

সোয়েটার

সোয়েটার

      -সাম্যময় সেন গুপ্ত-

নবীণ শীতের শিরশিরে আমেজে 

জানালার পাশে বসে, দুটি কাঁটায়

বুনতে তুমি, তোমার ভালবাসা 

মিষ্টি রোদ তোমার ফর্সা গালে 

দিতো সোনালি আভা 

উষ্ণ ভাললাগা পেতাম 

তোমার স্নেহের মনযোগে 

তোমার ঘর ভুলের বিরক্তি, 

জট ছাড়ানোর অধৈর্য, বুনতে বুনতে 

গুনগুন আনমনে….., তুমি অনেকখানি 

জড়িয়ে আছো নরম নীল নকশায়

ন্যাপথালিনের গন্ধে 

উলের ওমে মুখ ডুবিয়ে 

আমি তোমায় ছুঁয়ে ফেলি 

————-

গ্রুপ ফটো 

গ্রুপ ফটো 

       -সাম্যময় সেন গুপ্ত-

কাঁধে হাত দিয়ে পরপর 

দাড়িয়ে আছি আমরা কয়েকজন 

হই হল্লার দিনে 

মুখে ঝলমলে হাসি 

দশ বাই বারোয় বন্দি 

অনাবিল সোনালি দাপাদাপি 

বিবর্ণ হয় সময়ের সাথে 

পথে দেখা হলে 

না চেনার ভাণ করে 

হেটে চলি 

গ্রুপ ফটো  নিয়ে হাতে !

————–