কাটলো ঘুড়ি

কাটলো ঘুড়ি

     – সাম্যময় সেন গুপ্ত –

ওই কাটলো ঘুড়ি –

কাটলো ঘুড়ি, কাটলো ঘুড়ি,

কচি কাচার হুড়োহুড়ি 

কাটলো ঘুড়ি !


নীল আকাশে চোখ চলে যায়

ওই যে ঘুড়ি, ওই ভেসে যায় !

হাওয়ার কোলে, কেমন দোলে 

নামছে নীচে  অলস তালে –

কাটলো ঘুড়ি !


চল্লিশের মন্দ দিকে,

চুলের রেখা হচ্ছে ফিঁকে 

তবুও কেমন বুক ঢিব ঢিব 

নামছে ঘুড়ি, পরবে তো ঠিক ?

কাটলো ঘুড়ি !


কোথায় পরবে ? কাদের ছাদে ?

কিম্বা কোনো গাছের মাথায়

নানান রকম সম্ভাবনায় 

মন ভরে যায় উত্তেজনায়,

কাটলো ঘুড়ি !


কাগজ সুতোর  কতই বা দাম 

আকাশ কে রোজ বার্তা দিতাম 

রোদ মাখা ওই চিলতে কাগজ 

তার পেছনে ছুটছে  অবুঝ 

কাটলো ঘুড়ি !


নিজের ভেতর নিজেই ছুটি 

বৃথাই করি অবুঝপনা 

ওই ঘুড়ি আর আমার তো নয় 

ধরতে মানা, ধরতে মানা 

কাটলো ঘুড়ি !

———

প্রেম ছত্রাক  ( 24 )

প্রেম ছত্রাক  ( 24 )

    -সাম্যময় সেন গুপ্ত-

শুকনো পাতায় ভরা জীর্ন ঘর 

চার দেয়ালে চার অধ্যায় টাঙানো পরপর, 

আসিও সংগোপনে

বিছানায় এক ফালি আলাপি রোদ্দুর 

জানালার পর্দায় বাতাসের সুর,

প্রিয়তমা আসিও সংগোপনে 

——

প্রেম ছত্রাক  ( 30 )

প্রেম ছত্রাক  ( 30 )

      -সাম্যময় সেন গুপ্ত-


তোমার প্রিয় সময়টাতে

পরলো মনে তোমার কথা 

হৃদয় বীণায় উঠলো বেজে 

অপার্থিব নিরবতা 

রাতের বুকে মুখটি গুজে 

দিন হারাবে মনের সুখে 

সাঁঝের আবির মাখিয়ে দিলাম 

লজ্জা রাঙ্গা তোমার মুখে 

——–