অপ্রেম ডায়েরি (2)

অপ্রেম ডায়েরি (2)

          – সাম্যময় সেন গুপ্ত –

কবে বেড়াতে যাব কেউ জানেনা. আমিও না. জামা কাপড় ফোন টুথ ব্রাশ এমনকি চশমা টাও ফেলে যাব. আমার হাত পা মাথা যৌনাংগো সপ্ন হৃদয় এমনকি মনটাও ফেলে রেখে বেড়াতে যাব. বেশ হাল্কা লাগবে নিজেকে. তখন বুঝব, আমার আদপে কোনো ওজনই ছিলোনা কখনো ! তবুও ভেসে বেড়াতে পারিনি …… .

……………

Advertisements

অপ্রেম ডায়েরি (1)

অপ্রেম ডায়েরি (1)

           – সাম্যময় সেন গুপ্ত –

কাঁচ ভেঙ্গে গেলে খুব সুন্দর করে ঝাঁট দেওয়া যায়. দেখ মেঝেটা এখন একদম পরিষ্কার. কাঁচ ভাঙ্গার আওয়াজ টুকু শুধু কানে লেগে আছে আজও. পরষ্পরের দেখা হলে, ওই পরিষ্কার মেঝেটাই দেখাবো তোমায়. ভাঙ্গা কাঁচ পায়ে ফোটেনি, তাই রক্তপাতও হয়নি. খুব বেঁচে গেছি, বলো ?! শুধু ওই আওয়াজ টুকু …….. .

……………..

কালো মেয়ের রাত 

কালো মেয়ের রাত 

– সাম্যময় সেন গুপ্ত –

আজ রাত বড় নরম 

লাজুক তারায় ভরা —

কালো আকাশ ওড়না গায়ে ,

দুষ্টু, মিষ্টি, অধরা

          টিপ পরনি কালো মেয়ে  ?

           পরলে ভালো দ্যাখায় —-,

           শুধু নিশুত রাতে সেজো মেয়ে,

            নইলে সবাই তাকায় !

এসো মেয়ে বাইরে এসো 

রাত যে বড় একা 

গোপন করে হোকনা তোমায়

নতুন করে দ্যাখা !

          আজ রাতে মেয়ে ঘুমিয়ো নাকো

           বইছে দামাল হাওয়া,

            আরশিতে চাঁদ রেখো ধরে 

            তবেই আকাশ পাওয়া 

 ——-

পুরুষ

পুরুষ

    – সাম্যময় সেন গুপ্ত –

কোনো পুরুষ সাপের মতো 

এঁকেবেঁকে চায়

কোনো পুরুষ বাঘের মতো

হালুম করে খায়

কোনো পুরুষ হ্যাংলা বেড়াল 

চুপিচুপি খায়

কোনো পুরুষ লেজ নাড়ে 

যদি কিছু পায়

———

প্রেম ছত্রাক ( 20 )

প্রেম ছত্রাক ( 20 )

 -সাম্যময় সেন গুপ্ত-

দুপুর রোদ পিঠে নিয়ে 

শীতের ছাদে আচার দিয়ে 

টক ঝাল ঝাল সময় মাখা 

মেয়েবেলার ভয় 

এমন করে বোকার মতো 

বড় কেউ হয় ?!

বড় হলেই মজা মাটি 

সব কিছু নয় ছয়

——–

প্রেম  ছত্রাক ( 41 )

প্রেম  ছত্রাক ( 41 )

      – সাম্যময় সেন গুপ্ত –

প্রেম বিন্যাস করতে বসে 

কালো মেঘের আনাগোনা 

বাজ পরে ওই ঝলসে গেল 

চোদ্দ আনা , চোদ্দ আনা !

টুপ টুপ টুপ টাপুর টুপুর 

বৃষ্টি নয়গো, অশ্রুকণা 

চিলেকোঠায় হারিয়ে গেল 

চোদ্দ আনা , চোদ্দ আনা !

——-